ঢাকা, বুধবার, ১২ আগস্ট ২০২০ , , ২২ জ্বিলহজ্জ ১৪৪১

ইভিএমে ভোট দেয়ার পদ্ধতি জেনে নিচ্ছেন সাধারণ ভোটাররা

নিউজ ডেস্ক,ঢাকা । সি এন এন বাংলাদেশ

আপডেট: জানুয়ারি ২, ২০২০ ৯:৩৯ সকাল

[addtoany]

ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের (ডিএসসিসি) নির্বাচনে প্রার্থীদের মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাইয়ের কাজ চলছে গোপীবাগে ৮ নন্বর ওয়ার্ড কমিউনিটি সেন্টারে। একই সেন্টারের নিচ তলায় সাধারণ ভোটারদের শেখানো হচ্ছে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনে (ইভিএম) ভোট দেয়ার পদ্ধতি।

নির্বাচন কমিশন থেকে মনোনীত কর্মকর্তারা ইভিএম প্রদর্শীর মাধ্যমে সাধারণ ভোটারদের এটি ব্যবহার পদ্ধতি সম্পর্কে জানাচ্ছেন। সকাল থেকেই ঢাকা দক্ষিণ সিটির বিভিন্ন এলাকার ভোটাররা কমিউনিটি সেন্টারে এসে ইভিএমে ভোট দেয়ার প্রক্রিয়া জেনে নিচ্ছেন।

 

ভোট প্রদানের পদ্ধতি ছাড়াও ইভিএমের কার্যক্রম সম্পর্কে ভোটার এবং প্রার্থীদের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দিচ্ছেন ইসির কর্মকর্তারা।

ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের গোপীবাগ এলাকার ভোটার সিদ্দিকুর রহমান বলেন, ‘ঢাকা সিটি কর্পোরেশনের নির্বাচন যেহেতু ইভিএমে ভোটগ্রহণ করা হবে সেহেতু এই ভোট দেয়ার পদ্ধতি সম্পর্কে জানতে এসেছি। এখানে দায়িত্বরত কর্মকর্তারা ইভিএমে ভোট দেয়ার পদ্ধতি খুব সহজে আমাদের বুঝিয়ে দিলেন।’

এদিকে ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের (ডিএসসিসি) নির্বাচনে মেয়র প্রার্থী হিসেবে মনোনয়নপত্র জমা দেয়া সাতজনকেই বৈধ প্রার্থী হিসেবে ঘোষণা করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাই শেষে রিটার্নিং কর্মকর্তা আবদুল বাতেন তাদের মনোনয়নপত্রে বৈধ ঘোষণা করেন।

ডিএসসিসি মেয়র পদে বৈধ প্রার্থীরা হলেন- আওয়ামী লীগের শেখ ফজলে নূর তাপস, বিএনপির ইশরাক হোসেন, জাতীয় পার্টির হাজী মোহাম্মদ সাইফুদ্দিন, ইসলামী আন্দোলনের মো. আবদুর রহমান, এনপিপির বাহরানে সুলতান বাহার, বাংলাদেশ কংগ্রেসের মো. আকতার উজ্জামান ওরফে আয়াতুল্লা ও গণফ্রন্টের আব্দুস সামাদ সুজন।

 

নির্বাচন কমিশনের ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী ঢাকার দুই সিটিতে ৩০ জানুয়ারি নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। এর আগে নির্বাচনে প্রার্থিতা প্রত্যাহারের শেষ দিন ৯ জানুয়ারি এবং প্রতীক বরাদ্দ হবে ১০ জানুয়ারি।

এছাড়া কোনো প্রার্থী অবৈধ ঘোষিত হলে রিটার্নিং কর্মকর্তার সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে ৫ জানুয়ারি পর্যন্ত আপিল করতে পারবেন। আপিল কর্তৃপক্ষ হিসেবে ঢাকা বিভাগীয় কমিশনারকে নিয়োগ দিয়েছে নির্বাচন কমিশন।