ঢাকা, সোমবার, ১ জুন ২০২০ , , ৯ শাওয়াল ১৪৪১

করোনায় চট্টগ্রাম কারাগারের উদ্যোগ: মোবাইলে পরিবারের সাথে কথা বলে স্বস্তি বন্দিদের

সেলিম চৌধুরী । সি এন এন বাংলাদেশ

আপডেট: মার্চ ২৮, ২০২০ ২:০৬ দুপুর

[addtoany]

চট্টগ্রাম :: এক ফোনকলেই স্বস্তি সাড়ে সাত হাজার বন্দির পরিবার। করোনা নিয়ে দেশের মানুষ যখন আতঙ্কিত, তখন সাড়ে সাত হাজার বন্দির পরিবার আছে গভীর উৎকণ্ঠায়। এবার কারাগার থেকে এক ফোনকলেই পরিবারের সেই আতঙ্ক ও উৎকণ্ঠা দূর করে দিচ্ছেন বন্দি নিজেই।

কারাগার থেকে একজন বন্দি পাঁচ মিনিট পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে মোবাইলের মাধ্যমে যোগাযোগ করতে পারছেন।পরিবারের সদস্যদের খোঁজ খবর নেওয়া ছাড়া ও আদান-প্রদান করছেন বন্দিজীবনের সুখ-দুঃখ। করোনা নিয়ে পরিবারকে আতঙ্কিত না হতে সব বন্দিই পরিবারকে বলছেন- নিরাপদেই আছেন তারা।

করোনা মোকাবিলায় চট্টগ্রাম কেন্দ্রীয় কারাগারে ইতিমধ্যে বাস্তবায়ন করা হয়েছে বহু পদক্ষেপ। করোনা মোকাবিলায় বন্দিদের মোবাইল সুবিধা দেওয়ার পর প্রথম দিন গত ২৫ র্মাচ প্রথম দিন ৪৬৪ বন্দি পরিবারের সঙ্গে ফোনে কথা বলেছেন। ২৬ মার্চ ২৮৭ জন ও ২৭ মার্চ ২৫৬ বন্দিও পরিবারের সঙ্গে কথা বলেছেন।

চট্টগ্রাম কেন্দ্রীয় কারাগারের সিনিয়র জেল সুপার মো. কামাল হোসেন বলেন, ‘কারাগারে মোবাইল ফোনের সুবিধা পেতে বন্দিদের সাতটি জোনে ভাগ করা হয়েছে। তারা সাত দিন পরপর পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে কথা বলতে পারছেন। একজন বন্দি সর্বোচ্চ পাঁচ মিনিট কথা বলতে পারছেন। প্রতি মিনিট কলরেট এক টাকা করে নেওয়া হচ্ছে। ফোনে কথা বলার মাধ্যমে সারাদেশের মতো চট্টগ্রাম কারাগারেও বন্দিদের নিয়ে তাদের স্বজনদের মধ্যে থাকা করোনা আতঙ্ক দূর হচ্ছে। এতে বন্দি ও তাদের পরিবার উভয়ের মধ্যে স্বস্তি কাজ করেছে।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে বেসরকারি কারাপরিদর্শক ইয়াছিন আরাফাত কচি বলেন , এখানে বর্তমানে সাড়ে সাত হাজার বন্দি রয়েছেন। পর্যায়ক্রমে এসব বন্দি সবাই ফোনে তাদের পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে কথা বলার সুযোগ পাবেন। কারাগারের কেইস টেবিল ভবনের নিচতলায় সাতটি টেলিফোন বুথ স্থাপন করা হয়েছে। প্রতিদিন সকাল ৭টা থেকে লাইন ধরে পরিবারের সঙ্গে কথা বলার সুযোগ পাচ্ছেন তারা।

এ বিষয়ে মানবাধিকার কর্মী এডভোকেট শামসুদ্দিন চৌধুরী বলেন, এটি একটি ভালো উদ্যোগ এতে পরিবারের সদস্যরা বন্ধিদের খোঁজ খবর নিতে কারাগারের ফটকে ভীড় করতে হবে না। তবে এ ব্যবস্হায় কঠোর নজরদারীতে রাখতে হবে যাতে কেউ এই সুযোগে এটির অপব্যবহার করতে না পারে।