ঢাকা, সোমবার, ৩০ মার্চ ২০২০ , , ৫ শা'বান ১৪৪১

করোনা নির্দেশনা অমান্য: বোয়ালখালীতে চলছে বিশাল মাহফিল ও মেজবান

সেলিম চৌধুরী । সি এন এন বাংলাদেশ

আপডেট: মার্চ ১৯, ২০২০ ৭:৩৪ দুপুর

চট্টগ্র্রাম :: করোনাভাইরাসের বিস্তার রোধে সারা দেশে সব ধরনের ধর্মীয়, রাজনৈতিক, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান বন্ধের নির্দেশ দিয়েছে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়। আজ (১৯ মার্চ) বিকেলে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় থেকে মাঠ পর্যায়ের প্রশাসনকে এ নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। কিন্তু এ নির্দেশনার মধ্যেও চট্টগ্রামের বোয়ালখালীতে চলছে মাহফিল, মহোৎসব, ওরশ, বিয়ে ও মেজবানের মতো বেশি লোকসমাগমের অনুষ্ঠানের আয়োজন। এ ক্ষেত্রে ছোটখাটো কয়েকটি আয়োজন প্রশাসন বন্ধ করলেও বড় আয়োজন বা কোটিপতির মেজবানের আয়োজন চলছে ঠিকই।

আমাদের বোয়ালখালী প্রতিনিধি জানান, বোয়ালখালী পৌরসভার পশ্চিম কধুরখীল চৌধুরী হাট এলাকায় আমিরাত প্রবাসী ও আওয়ামী লীগ নেতা আলহাজ্ব শফিক আহমেদের মাদ্রাসা ও কমিউনিটি সেন্টারে তার বাবা মায়ের ইছালে ছওয়াব মাহফিল উপলক্ষে বড় পোস্টার ব্যানার ছাপিয়ে বিশাল মাহফিল ও মেজবানের আয়োজনের করেছেন। আজ ১৯ মার্চ রাতে দেশবরেণ্য ওলামার সমন্বয়ে ওয়াজ মাহফিলের আয়োজন চলছে। মাইকিংও চলছে। আগামীকাল শুক্রবারের আয়োজন হচ্ছে বড় আকারের মেজবান। প্রায় দশ হাজার মানুষের খাবারের আয়োজন করেছে বলে জানা গেছে। সাধারণ মানুষের প্রশ্ন, ছোটখাটো আয়োাজন বন্ধ করে দেয়া হলেও এসবে বড় আযোজন কেন বন্ধ করা হচ্ছে না। এসবে আয়োজনে করোনা কি ছড়াবে না। বরং সম্ভাবনাটা বেশি। কারণ এসব এলাকা প্রবাসী অধ্যুষিত এলাকা। প্রতিটি ঘরে ঘরে প্রবাসী আছেন। আর কেউ না কেউ সপ্তাহ দশ দিন আগে বাড়ি আসছেন। তাই এসব এলাকায় এতো সমাগমে রিস্ক রয়েছে বেশি।

এব্যাপারে বোয়ালখালী থানার ওসি নেয়ামত উল্লাহর কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, স্থানীয় কেউ মোবাইল ম্যাসেজ দিয়ে অভিযোগ করলে আমি ব্যবস্থা নিতে পারবো।

স্থানীয় কাউন্সিলর শাহজাদা এস এম মিজানুর রহমান জানান, ‘সরকারী নির্দেশটি এলাকার ছোটখাটো সব আয়োজনের ক্ষেত্রে স্ব স্ব আয়োাজকদের জানিয়ে বন্ধ রাখতে বলেছি কিন্তু এটা বড় আয়োজন তারপরও আমি বলেছি। কিন্তু কেউ যদি সরকারী নির্দেশ বলার পরও না মানেন তাহলে আমার কি করার আছে।’

স্থানীয় বাসিন্দা মোহাম্মদ মানিক বলেন, আমাদের এলাকায় হযরত রহম আলী ফকিরের ওরশের মাহফিল এবং ফাতেহার আয়োজন চলছে। স্থানীয় কাউন্সিলর বলার পর আমরা আয়োজন প্রায় বন্ধ রেখেছি। কিন্তু বিকেল থেকেই চলছে হাজী শফিক আহমেদের বিশাল আকারের মিলাদ মাহফিল। এটা কেন হবে তাহলে?

বোয়ালখালী প্রেস ক্লাবের সভাপতি মো. সিরাজুল ইসলাম বলেন, আইন সবার জন্য প্রযোজ্য এবং সবার ক্ষেত্রে সমান। কিন্তু কিছু আয়োজন চলবে আবার কিছু আয়োজন বন্ধ করা হবে এটাতো ঠিক না। তাই প্রশাসনের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি দেশব্যাপি করোনা ঠেকাতে সরকারের উদ্যোগটি যেনো যথাযথভাবে মেনে চলার জন্য প্রয়াজনীয় ব্যবস্থা নেন।

উল্লেখ্য,  গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে নতুন করে করোনায় আক্রান্ত চার জন শনাক্ত হওয়ার পর, আজ  দুপুরে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক প্রেস ব্রিফিং করে জানান, করোনাভাইরাসে কোনো এলাকা বেশি আক্রান্ত হয়ে গেলে, সে এলাকা লকডাউন করা হবে। এর পরেই, আজ বৃহস্পতিবার বিকেলে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় থেকে দেশে সব ধরনের ধর্মীয়, রাজনৈতিক, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান বন্ধের নির্দেশ দেয়া হয়।


%d bloggers like this: