ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২০ , , ৩ রজব ১৪৪১

চবি ছাত্রলীগের বগিভিত্তিক দুই গ্রুপের সংঘর্ষ : একাংশের অবরোধের ডাক

চবি প্রতিনিধি । সি এন এন বাংলাদেশ

আপডেট: জানুয়ারি ২২, ২০২০ ৪:৪৩ দুপুর

চট্টগ্রাম :: চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে (চবি) ছাত্রলীগের বগিভিত্তিক দুই গ্রুপের সংঘর্ষে অন্তত ৭ জন আহত হয়েছে। এরপর একাংশের পক্ষ থেকে লাগাতার অবরোধের ডাক দেয়া হয়েছে।

বুধবার (২২ জানুয়ারি) বিকেল ৪ টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের রেল স্টেশন সংলগ্ন একটি দোকানের (সিপি) পাশে ছাত্রলীগের তিন কর্মী আরএস গ্রুপের হামলার শিকার হয় বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। মারধরের শিকার ছাত্রলীগ কর্মীরা হলো বিশ্ববিদ্যালয়ের নাট্যকলা বিভাগের (২০১৪-১৫) শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থী মাহফুজুল হুদা লোটাস, ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগের একই শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থী ইব্রাহিম খলিল ও ইতিহাস বিভাগের জাহিদ শাকিল। তারা তিনজনই সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীনের অনুসারী শাখা ছাত্রলীগের বগিভিত্তিক সংগঠন সিক্সটি নাইনের কর্মী।

ছাত্রলীগ নেতা রকিবুল হাসান দিনারের নেতৃত্বাধীন রেড সিগন্যাল (আর এস) গ্রুপের নেতাকর্মীরা এসে তাদের উপর হামলা চালিয়ে আবার একই সিএনজি করে ১ নং গেইটের দিকে চলে যায়।

মারধরের শিকার তিন জনকে চবি মেডিকেল সেন্টারে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় সিক্সটি নাইন গ্রুপের নেতা-কর্মীদের মধ্যে ছড়িয়ে পড়লে বিশ্ববিদ্যালয়ের জিরো পয়েন্টে তালা লাগিয়ে বিক্ষোভ ও মিছিল করে তারা।

এ ঘটনা বিষয়ে শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন টিপু বলেন, অকারণে কারও ওপর আঘাত করা ন্যায় সঙ্গত নয়। বিগত দিনগুলোতে ও বিভিন্ন ঘটনায় বহিরাগত কর্তৃক ছাত্রলীগের নেতা-কর্মী ছাড়াও সাধারণ শিক্ষার্থীরা আক্রমণের শিকার হয়েছে। এসব ঘটনায় কোন কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয় নি। আমরা প্রশাসনকে আগামীকাল বেলা বারোটার মধ্যে ব্যবস্থা নেয়ার আহ্বান জানিয়েছি।

এদিকে এ ঘটনার রেশ কাটতে না কাটতে বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় খেলার মাঠে সিএফসি গ্রুপের এক কর্মী মারধরের শিকার হয়। পরে সিএফসি গ্রুপের কর্মীরা বিশ্ববিদ্যালয়ের সোহারওয়ার্দী হলে বিজয় গ্রুপের কর্মীদের ওপর হামলা চালায় এবং বিজয় গ্রুপের নেতা-কর্মীরা বিশ্ববিদ্যালয়ের সোহারওয়ার্দী হলের সামনে এবং সিএফসি গ্রুপের নেতা-কর্মীরা বিশ্ববিদ্যালয়ের শাহ আমানত হলের সামনে অবস্থান করে।

এ ঘটনায় সিএফসি গ্রুপের এক কর্মী ও বিজয় গ্রুপের তিন কর্মী আহত হয়। আহত বিজয় গ্রুপের কর্মীরা হলো রাজনীতি বিজ্ঞান বিভাগের আবু বক্কর সিদ্দিক, আইন অনুষদের অপূর্ব, গণিত বিভাগের রাপন। তারা সকলেই প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থী। আহত সিএফসি গ্রুপের কর্মী হলো ইতিহাস বিভাগের (১৭-১৮) শিক্ষাবর্ষে শামীম আজাদ।

এ ঘটনা বিষয়ে শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি রেজাউল হক রুবেল বলেন, ক্যাম্পাসে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ কর্তৃক বগিভিত্তিক সংগঠন নিষিদ্ধ করা হয়েছে। যারা এ ধরনের কর্মকাণ্ড ঘটিয়েছে তাদের বিরুদ্ধে আমরা সাংগঠনিক ব্যবস্থা গ্রহণ করবো এবং প্রশাসানকে আগেও বলেছি , এখনও বলছি সকল অপরাধীর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করতে। এদের যদি এভাবে ছাড় দেয়া হয় তাহলে ক্যাম্পাসে সহিংসতা আরও বেড়ে যাবে।

চবি ছাত্রলীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক ও বিজয় পক্ষের নেতা মোহাম্মদ ইলিয়াস বলেন, এ ঘটনায় জড়িতদের রাত ৯ টার মধ্যে গ্রেফতার করতে হবে। অন্যথায় আজ রাত থেকে বিশ্ববিদ্যালয় লাগাতার অবরোধ চলবে। ছাত্রলীগ থেকেও তাদের বহিষ্কারের দাবি জানাই।

এসব বিষয়ে চবি প্রক্টর এস এম মনিরুল হাসান বলেন, আমরা এখনও পরিস্থিতি পর্যাবেক্ষণ করছি। পরিস্থিতি বুঝে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।


%d bloggers like this: