ঢাকা, সোমবার, ৯ ডিসেম্বর ২০১৯ , , ১১ রবিউস সানি ১৪৪১

শেকলে বাধা কফিন, কবিতায় মোড়া এপিটাফ

সি এন এন বাংলাদেশ

আপডেট: মার্চ ২৩, ২০১৯ ১২:৫৫ দুপুর

(কবিতা)

সুহৃদ সোহান হক 

একবার ভীষণ ইচ্ছে হয়েছিলো
জীবন টা কে পায়রা করে উড়িয়ে দেই
একবার ভীষণ ইচ্ছে হয়েছিলো
আমার সারা শরীর বিষময় করে তুলুক দুরন্ত নাগ
একবার ভীষণ ইচ্ছে হয়েছিলো
আমার গ্রন্থিল মগজে বসবাস হোক
কোন এক বুনো দেবতার

হঠাৎ আমার নিদ্রার ভেতর হেঁটে গেলো সে
কথা কয়ে উঠলো মন্দ্রসপ্তক সুরে
আর, তার রেশম স্পর্শে ছলাৎ ছলাৎ জল

পোড়া মাটির কাজ আজন্ম প্রিয় আমার
তারপরেও চাইনি তুমি অজন্তা ইলোরা হও
বরং মিকেলেঞ্জেলো কিংবা রাফায়েলের হাত খেলা করুক
তোমার শরীরে
পুরো ষোড়শ শতাব্দী ফুটে উঠুক তোমার নাভি মূলে

তুমি হয়ে ওঠো নন্দনতাত্ত্বিক বিশ্লেষণের স্তম্ভ

আমি ভিসুভিয়াস হতে হতেও হয়ে গিয়েছি
নরম নদী
পম্পেই হতে হতেও উর্বর বরেন্দ্র

আমি একবার তোমাকে রানী লসট্রিসের মতো
প্রেমময়ী করতে চেয়েছিলাম।
অতো টা প্রেম নিতে পারো নি তুমি

পুনরায় আমার নিদ্রার ভেতর হেঁটে গ্যাছো তুমি
আমি দেখলাম
তোমার বাহুতে, গ্রীবায়, চুলে ঝোরে ঝোরে পড়ছে শিল্পের সুষমা
তুমি গেঁথে আছো লরেঞ্জর হাতের ভাঁজে।
আমি এখন আর জীবন কে পায়রা করার কথা ভাবি ই না
বরং পায়রা কেই নিজের জীবনে ওড়াই।




%d bloggers like this: