ঢাকা, রোববার, ২৯ মার্চ ২০২০ , , ৪ শা'বান ১৪৪১

‘হাতধোয়া’ কর্মসূচি নিয়ে দু’পক্ষের সংঘর্ষে আহত ২০

নিউজ ডেস্ক । সি এন এন বাংলাদেশ

আপডেট: মার্চ ২৬, ২০২০ ৯:১৮ সকাল

 

‘হাতধোয়া’ কর্মসূচি নিয়ে দু’পক্ষের সংঘর্ষে আহত ২০
করোনাভাইরাস সংক্রমণ রোধে সিলেটে ‘হাতধোয়া’ কর্মসূচি নিয়ে দু’পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এ সময় দু’পক্ষের পাল্টাপাল্টি হামলায় উভয়পক্ষে অন্তত ২০ জন আহত হয়েছেন। বুধবার (২৫ মার্চ) সন্ধ্যায় নগরীর পশ্চিম কাজলশাহ এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, বিকালে ৯ নং ওয়ার্ডের এতিম স্কুল রোডের কিছু যুবক করোনাভাইরাস সংক্রমণ প্রতিরোধে ‘হাতধোয়া’ কর্মসূচি ও জীবাণুনাশক স্প্রে করে আসা-যাওয়া মানুষের মাঝে।

এ সময় পশ্চিম কাজলশাহ এলাকার গিয়াস মিয়া নামের এক ব্যক্তির হাতে স্প্রে দিতে গেলে তিনি তাদেরকে গালিগালাজ করেন। বিষয়টি নিয়ে পশ্চিম কাজলশাহ এলাকার বাসিন্দা ও এতিম স্কুল এলাকার বাসিন্দাদের মধ্যে দফা ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে।

এর জেরে সন্ধ্যার পর ফের উত্তপ্ত হয়ে ওঠে পুরো এলাকা। এ সময় এতিম স্কুল রোডের বেশ কিছু যুবক দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে স্থানীয় বাসিন্দা গিয়াস মিয়ার বাসায় হামলা চালায় এবং ভাঙচুর করে কয়েকটি দোকান।

এক পর্যায়ে দু’পক্ষের মধ্যে তুমুল সংঘর্ষ ও ইটপাটকেল নিক্ষেপ শুরু হলে অন্তত ২০ জন আহত হয়।

কোতোয়ালি থানার ওসি সেলিম মিঞা গণমাধ্যমকে বলেন, এ ঘটনায় আহতদের মধ্যে একজনকে ওসমানী হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। বাকিদের প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়ে বাসায় চলে গেছেন।

তিনি জানান, সংঘর্ষের খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে উপস্থিত হন সিলেট সিটি কর্পোরেশনের ৯ নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মখলিসুর রমমান কামরান ও ৩ নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর আবুল কালাম আজাদ লায়েক।

তারা দু’পক্ষকে নিয়ে সমাধানের চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন বলে জানা গেছে। এখনও কোনোপক্ষই থানা অভিযোগ করেনি। অভিযোগ পেলে আমরা আইনানুগ ব্যবস্থাগ্রহণ করব বলে জানান ওসি।




%d bloggers like this: