মঙ্গলবার, ১৯ জানুয়ারী ২০২১

আ.লীগ কর্মী নিহত : বিদ্রোহী কাউন্সিলর প্রার্থীসহ আটক ২৬

সি এন এন বাংলাদেশ

আপডেট: জানুয়ারী ১৩, ২০২১ ১৪:১৯ পিএম

আ.লীগ কর্মী নিহত : বিদ্রোহী কাউন্সিলর প্রার্থীসহ আটক ২৬

চট্টগ্রামে প্রতিপক্ষের গুলিতে আওয়ামী লীগ কর্মী নিহতের ঘটনায় বিদ্রোহী কাউন্সিলর প্রার্থী আবদুল কাদেরসহ ২৬ জনকে আটক করেছে পুলিশ। মঙ্গলবার (১২ জানুয়ারি) রাতভর নগরীর ২৮ নম্বর পাঠানটুলী ওয়ার্ডের বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করা হয়।

ডবলমুরিং থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সদীপ কুমার দাশ বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

মঙ্গলবার রাতে চট্টগ্রাম নগরের ২৮ নম্বর পাঠানটুলি ওয়ার্ডের মগপুকুর পাড় এলাকায় আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী নজরুল ইসলাম বাহাদুর এবং আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী আবদুল কাদেরের সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। এতে গুলিবিদ্ধ হয়ে আজগর আলী বাবুল (৫৫) নামে একজন মারা যান। নজরুল ইসলাম বাহাদুর নিহত বাবুলকে নিজের কর্মী হিসেবে দাবি করেছেন।

নজরুল ইসলাম বাহাদুর বলেন, ‘রাতে গণসংযোগকালে পাঠানটুলির মগপুকুর এলাকায় বিদ্রোহী প্রার্থী আবদুল কাদেরের অনুসারীরা সশস্ত্র হামলা চালায়। এ সময় গুলি করে স্থানীয় আওয়ামী লীগ কর্মী ও মহল্লার সর্দার বাবুলকে হত্যা করেছে তারা। আমাকে বাঁচাতে গিয়ে এ সময় যুবলীগ কর্মী মাহবুব গুলিবিদ্ধ হয়েছেন।’

এদিকে আটকের আগে বিদ্রোহী প্রার্থী আবদুল কাদের মুঠোফোনে বলেছিলেন, ‘আমার কর্মী-সমর্থকদের নিয়ে আবু শাহ মাজার এলাকায় গণসংযোগ করছিলাম। রাত আটটার দিকে আমার অনুসারীদের আচমকা ধাওয়া করে নজরুল ইসলাম বাহাদুরের অনুসারীরা। এরপর তারা গুলি ছুঁড়লে আমি বাসার ভেতরে অবস্থান নিই। যে মারা গেছে সে বিরোধী পক্ষের কর্মী। কিন্তু কীভাবে মারা গেছে তা আমরা জানি না।’

সংঘর্ষে জড়ানো কাউন্সিলর পদপ্রার্থী আব্দুল কাদের ও নজরুল ইসলাম বাহাদুর দুজনই ২৮ নম্বর ওয়ার্ডের সাবেক কাউন্সিলর। সদ্য সাবেক কাউন্সিলর আব্দুল কাদের নগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আ জ ম নাছিরের অনুসারী হিসেবে পরিচিত।

অপরদিকে নজরুল ইসলাম বাহাদুর শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেলের অনুসারী হিসেবে পরিচিত। আব্দুল কাদের এর আগে ২০১০ থেকে ২০১৪ সাল পর্যন্ত কাউন্সিলর ছিলেন।