ঢাকা, শনিবার, ১৫ আগস্ট ২০২০ , , ২৫ জ্বিলহজ্জ ১৪৪১

কে দেবে তার উত্তর ?

মিনার মনসুর । সি এন এন বাংলাদেশ

আপডেট: মার্চ ২৪, ২০২০ ১১:৫৭ সকাল

[addtoany]

চট্টগ্রাম ::  ন্যুইয়র্কে, বিশ্বের সবচেয়ে শক্তিধর রাষ্ট্রটির সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ মহানগরে, একদিনেই করোনাক্রান্ত হয়েছে ৫ সহস্রাধিক মানুষ। স্বাস্থ্যব্যবস্থা ভেঙে পড়ার আতঙ্কে আছে যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য ও ইউরোপের সরকারসহ লাখ লাখ মানুষ। স্বেচ্ছাবন্দী হয়ে পড়েছে প্রায় পুরো পৃথিবী। কল্পবিজ্ঞানের কাহিনির চেয়েও ভয়াবহ– অভাবনীয় এক আঁধার এসেছে পৃথিবীতে আজ । আমরা যতটা আশঙ্কা করেছিলাম তার চেয়েও দ্রুত বদলে যাচ্ছে আমাদের চেনা পৃথিবী। সম্পূর্ণ‍ অচেনা এক পৃথিবী তার ভয়াল ডানার কফিনে মুড়িয়ে ফেলছে কোটি কোটি মানুষের বিচিত্র স্বপ্নে রাঙা বর্ণাঢ্য সব দিনরাত্রি।

কিন্তু ‘নিষিদ্ধ গন্ধমের স্বাদ পাওয়া’ স্বর্গচ্যুত মানুষকে কে দাবিয়ে রাখে! যেখানে নিষেধাজ্ঞা সেখানেই সে আরও দুর্বিনীত। অশিক্ষা-কুশিক্ষা ও কুসংস্কারকবলিত বাংলাদেশ শুধু নয়, উন্নত দুনিয়ার অগ্রসর দেশগুলোসহ পেরে উঠছে না কেউ। ইতালির মানুষ যদি তাদের সরকারের কথা শুনতো, হয়তো লাশের মিছিল এত দীর্ঘ হতো না। কী করা উচিত আর কী করা উচিত নয়– তা নিয়ে তথ্যের কোনো অভাব নেই। কিন্তু কেউই তা গ্রাহ্য করছে না। মারাত্মকভাবে জনবহুল ও দারিদ্র্যকবলিত বাংলাদেশের ঝুঁকি যে তুলনামূলকভাবে অনেক বেশি তা সবাই জানে। কিন্তু বাস্তবে সেই বোধ কারো মধ্যে খুব একটা কাজ করছে বলে মনে হয় না। বরং এমন বিপজ্জনক একটি প্রচারণা ও ‘ফতোয়ায়’ সামাজিক মাধ্যম ছেয়ে আছে যে ‘আমাদের কিচ্ছু হবে না’।

তারপরও ভোর হয়। আমি হাঁটতে বেরিয়ে পড়ি। আগে ধানমন্ডি লেকসংলগ্ন পার্কে হাঁটতাম। এখন হাঁটি বাড়ির ছাদে। মার্চ মাসের শেষের দিনগুলোর সকালটা খুব সুন্দর। বাতাস আশ্চর্য সতেজ। গাছের পাতাগুলো সবুজ। মাঝেমধ্যে শোনা যায় কোকিলের ডাক। বছরের পর বছর ধরে দেখে আসছি, অথচ একটুও একঘেয়ে লাগে না। ছাদবন্দি হয়ে পড়ার কারণে প্রথম কয়েকটা দিন মন খারাপ থাকলেও এখন ভালোই লাগে। আজ সকালে দেখলাম, গাঢ় নীল রঙের ছোট্ট একটি পাখি ডাকছে। গলাটা ভারি মিষ্টি। যুগপৎ মুগ্ধতা নিয়ে আমি ভাবি– যদি পৃথিবী মানুষশূন্য হয়ে যায়, তখনও এই পাখিগুলো থাকবে, থাকবে অপরূপ এই প্রকৃতি!

যখন ফিরে আসবো তখন প্রতিদিনকার মতো আবারও নজর কেড়ে নেয় অল্প দূরে জীবনানন্দের দারুচিনি দ্বীপের মতো একখণ্ড সবুজ। দানবের মতো আগ্রাসী ক্ষুধা নিয়ে চারপাশ থেকে ধেয়ে আসা বিল্ডিংয়ের আগ্রাসন থেকে নিজেকে রক্ষার জন্যে হাঁসফাঁস করছে। চকিতে আমার মনে হয়, যদি মানুষ লুপ্ত হয়ে যায় এই পৃথিবী থেকে– তখন এই পাখি, এই প্রকৃতি, এই একখণ্ড বিপন্ন সবুজ হয়ত আরও ভালো থাকবে! মনটা আবার বিষাদে ভরে যায়। যে প্রকৃতি মায়ের মতো মমতা দিয়ে আমাদের বাঁচিয়ে রেখেছে, তাকে কেন আমরা প্রতিপক্ষ বানিয়েছি– কে দেবে তার উত্তর?

লেখক :: কবি ও সাংবাদিক |

#করোনার সঙ্গে বসবাস-৭/ঢাকা: ২৪ মার্চ ২০২০